কন্ডোমের বিচিত্র ইতিহাস, জানেন কী ?

বর্তমান পপুলেশন বুম-এর যুগে মানুষের ফ্যান্টাসি আর জনসংখ্যা বিস্ফোরনের মধ্যে এক সুক্ষ ব্যবধানের নাম কন্ডোম। অবাধ সুরক্ষিত যৌনজীবন থেকে শুরু করে জনসংখ্যা বিস্ফোরনের মতো বহু সমস্যা সমাধানের এক অন্যতম হাতিয়ার কন্ডোম। কিন্তু শুধু কি বর্তমান কালেই এর ব্যাবহার হয় ? তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে প্রাচীনকালে কি এর ব্যাবহার মানুষের জানা ছিল না ? তাহলে বলে রাখা ভালো যে কন্ডোমের ইতিহাস কমপক্ষে 11000 বছরের পুরানো । কি শুনতে অবাক লাগছে ? আসুন তাহলে আজ জেনে নিই প্রাচীন কীল থেকে বর্তমান যুগ পর্যন্ত কন্ডোমের সু্প্রাচীন ইতিহাস

আদিম যুগের পাতায় – আগেই বলেছি কন্ডোমের সুপ্রাচীন ইতিহাস জানতে হলে আমাদের আগে চলে যেতে হবে 11000 বছর আগে। ব্যাপার হচ্ছে ফ্রান্সের এক যৌনক্রীড়ারত যুবক-যুবতীর গুহাচিত্র থেকে ইতিহাসবিদরা একথা বলতে পেরেছেন যে তখনকার দিনেও মানুষ সুরক্ষিত যৌনজীবন নিয়ে যথেষ্ট সচেতন ছিল। তারা গুহার মধ্যে পড়ে থাকা ছোট ছোট চামড়ার টুকরোকে ব্যাবহার করত কন্ডোম হিসাবে।

সু্প্রাচীন গ্রীক সভ্যতায় পশুর চামড়া থেকে তৈরী বেশ কিছু আচ্ছাদানের হদিশ পাওয়া যায় যা সেই সময় কন্ডোমের কাজ করত। প্রাচীন গ্রীক পুড়ান থেকে জানা যায় গ্রীক রাজারা নিজের স্ত্রীকে সুরক্ষিত যৌনসুখ দেওয়ার জন্য এক বিশেষ আচ্ছাদন ব্যাবহার করত ।

মিশরীয়রা লাইনেন জাতীয় কাপড়ের ব্যাবহার করত কন্ডোম হিসেবে। যৌনজীবনের জন্য তো বটেই, এছাড়াও পোকামাকড়ের কামড় থেকে বাঁচার জন্যও যৌনাঙ্গ কাপড় দ্বারা ঢাকা থাকত।

condom history animal membrane condom

এশীয় দেশগুলির মধ্যে জাপান ও চীনে যৌনতার সময় একরকম আচ্ছাদন ব্যাবহারের হদিশ পাওয়া যায়। তবে এগুলি আদতে কী দিয়ে তৈরী তার কোনও হদিশ পাওয়া যায়নি। তবে অনুমান করা যায় এগুলিও পশুর চামড়া বা কোনও কাপড় দিয়েই তৈরী করা হত।

কন্ডোমের যুগের নবজাগরন- ষোলশ শতকে ইউরোপে এক নতুন রোগের আবির্ভাব হল। রোগটির নাম সিফিলিশ যা তখনকার দিনে ফ্রেন্ঞ্চ ডিশীস্ নামে পরিচিত হয়ে ওঠে।

Knowledge base

Syphilis

Three panels outlining the stages of syphilis. Stage 1: open genital stores three to 90 days after exposure. Stage 2: Body rash four to 10 weeks after initial infection. Stage 3: Damage to multiple organs three to 15 years after initial infection.

A bacterial infection usually spread by sexual contact that starts as a painless sore. Spreads by sexual contact.
  • Treatable by a medical professional
  • Medium-term: resolves within months
  • Requires a medical diagnosis
  • Lab tests or imaging always required
Learn More

সেইসময় গ্যাব্রীয়েল ফ্যালিপ্পিও নামে এক বিজ্ঞানী কেমিক্যাল ও লাইলেন কাপড় সহযোগে তৈরী একধরনের কাপড় আবিস্কার করেন। এই কাপড় পুরুষের যৌনাঙ্গের আচ্ছাদন হিসাবে ব্যাবহৃত হতো যৌনতার সময়। এটি আবিস্কারের পর তিনি 1000 জন নর-নারী কে নিয়ে একটি পরীক্ষা করেন। এই পরীক্ষায় দেখা যায় এই কাপড় ব্যাবহার করে যৌনতায় লিপ্ত হয়েও কেউ সিফিলিশ্ রোগে আক্রান্ত হয়নি।

তার এই আবিস্কার ধর্মীয় গুরু ও বিজ্ঞানী উভয়ের দ্বারাই সমালোচিত হয়। ধর্মীয় যাজকরা এর ব্যাবহারকে অসৎ বলে ব্যাখা করে। পরে ড্যানিয়েল টার্নার নামে এক বিজ্ঞানী এর বিরোধীতা করে। তার কথায় এটি পুরুষ মানুষকে একাধিক সম্পর্কে লিপ্ত হতে উৎসাহিত করত।

যতই বিতর্ক হোক না কেন গ্যব্রীয়েল-ই ছিলেন প্রথম বৈজ্ঞানীক কন্ডোমের জনক। এরপর পশুর চামড়া দিয়ে তৈরী কন্ডোমের ব্যাবহার ইউরোপ জুড়ে বাড়তে থাকে। এগুলি অত্যন্ত দামী হওয়ার কারনে অনেক সময় এগুলি একবার ব্যাবহারের পর আবার ব্যাবহার করা হতো।

scientist testing a condom

আধুনিক কন্ডোমের যুগ- সমগ্র ইউরোপ জুড়ে যখন কন্ডোমের ব্যাবহার বাড়তে থাকে তখন চার্লস গুডইয়ার নামের এক বিজ্ঞানী প্রথম অনুভব করলেন যে পশুর চামড়া দ্বারা নির্মিত কন্ডোম স্বাস্থ্যর পক্ষে ভালো নয়। 1839 সালে তিনি রবার গ্যালভানাইজেশন আবিস্কার করেন, এবং 1853 সালে তিনি আবিস্কার করেন প্রথম রবার নির্মিত কন্ডোম। এরপর থেকেই উৎসাহি যুবক-যুবতীর মধ্যে এই নতুন কন্ডোমের চাহিদা বাড়তে থাকে।

এই ধরনের কন্ডোম আগের তুলনায় প্রচুর সস্তা হওয়ায় সমাজের সব শ্রেণীর মানুষ এর সুবিধা পেতে থাকে। আগে যেখানে শুধু উচ্চবিত্তরা কন্ডোম ব্যাবহার করতে পারত সেখানে শ্রমিক শ্রেণীর লোকেরাও এখন এর সুবিধা থেকে বন্ঞ্চিত হল না।

কন্ডোমের জনপ্রিয়তা এত দ্রুতহারে বাড়তে থাকল যে নিউইয়র্ক টাইমস্ – এর মতো পত্রিকাও এবার কন্ডোমের অ্যাড দিতে লাগল। 1920 সালে ল্যাটেক্স কন্ডোমের আবিস্কার আর এক নতুন যুগান্তকারী আবিস্কার প্রমানিত হল, কারন এটাই একমাত্র কন্ডোম য “ওয়ান সাইজ ফিটস্ অল”- এর নিশ্চয়তা দিল।

তাহলে দেখলেন মানব মানব সভ্যতার বিকাশের অন্যতম হাতিয়ারের আচ্ছাদনের ইতিহাস কত বিচিত্র। সত্যি তাই না ?

 

Tags:

or

Log in with your credentials

Forgot your details?